ফুচকা, টক ও চটপটি/পুর তৈরির সহজ রেসিপি

0
85

ফুচকা, টক ও চটপটি/পুর তৈরির নিয়মঃ-

ফুচকা তৈরির নিয়ম:-
উপকরণ: আধা কাপ ময়দা। দেড়কাপ সুজি। আধা চা-চামচ লবণ। বেইকিং পাউডার আধা চা-চামচ। ৯ থেকে ১০ টেবিল-চামচ সাধারণ পানি। চাইলে কালিজিরাও খামিরের সঙ্গে দিতে পারেন, তবে সামান্য।

পদ্ধতি:
ময়দা, সুজি, লবণ আর বেকিং পাউডার ভালো ভাবে মিশিয়ে পানি দিয়ে মথে খামির তৈরি করুন।
খামিরটা ভেজা টিস্যু দিয়ে ১০ মিনিট ঢেকে রেখে দিন। খেয়াল রাখবেন খামির যেন নরম না হয়। কারণ খামির শক্ত হলে ফুচকা বেশি মচমচে হবে।
এখন রুটির মতো বেলে নিন খামিরটা। তারপর রুটি থেকে গোল কিছু দিয়ে ফুচকার আকারে ছোট ছোট করে কেটে নিন।
সেগুলো ডুবো তেলে অল্প আঁচে ভেজে ফেলুন৷ আস্তে আস্তে ভাজলে ফুচকা পরে নরম হবে না৷ তাই সময় নিয়ে আঁচ ঠিক রেখে ভেজে তুলুন।
ফুচকা বানিয়ে, অনেকদিন পর্যন্ত বায়ুনিরোধক বাক্স কিংবা টিনে ভরে রেখে দিতে পারেন।

ফুচকার টক তৈরির নিয়ম:-
প্রয়োজনীয় উপকরনঃ

– পাকা তেতুল আধা কাপ
– শুকনা মরিচ ২ টা
– ভাজা জিরা গুড়া আধা চা চামচ
– বিট লবন ১ চা চামচ
– লবন সামান্য
– চিনি সামান্য
– সরিষার তেল ২ চা চামচ
– পানি প্রয়োজন মত ।

**প্রস্তুত প্রনালীঃ

( ১ ) প্রথমে তেতুল গুলো ১ কাপ পানিতে ভিজিয়ে রেখে হাত দিয়ে কচলে তেতুলের ক্বাথ বের করে নিতে হবে । তেতুল গুলো নরম হয়ে পানিতে মিশে গেলে তেতুলের বীচি ও ছোবলা বেছে ফেলে ছেকে নিতে হবে । এবার টক তৈরির জন্য তেতুলের ক্বাথ রেডি ।

( ২ ) এখন একটি পাত্রে তেল গরম করে শুকনা মরিচ ছিড়ে কুচি করে তেলে দিয়ে ভাজতে হবে । মরিচ পুড়িয়ে ফেলবেন না, ভাজা হলে জিরা গুড়া দিয়ে তেতুলের ক্বাথ দিয়ে নাড়তে থাকুন ।

( ৩ ) এরপর এতে বিট লবন, লবন ও চিনি দিয়ে নাড়তে থাকুন । চটপটির জন্য যে তেতুলের টক বানানো হয় তা একটু ঘন হয় আর ফুচকার টা একটু পাতলা হয় । আপনি আপনার প্রয়োজন মত পানি মিশিয়ে পাতলা বা ঘন তেতুলের টক তৈরি করতে পারেন । টেষ্ট করে দেখুন , লবন বা চিনি লাগলে দিন । ২-৩ মিনিট পরেই নামিয়ে ফেলুন, সহজেই তৈরি হয়ে গেল তেতুলের টক।

সংরক্ষনঃ-
কাঁচের বয়ামে ভরে মুখ বন্ধ করে নরমাল ফ্রিজে রেখে দিন। এভাবে সপ্তাহ খানেক ভালো থাকবে । তবে টাটকা বানিয়ে খেতে বেশি মজা ।

চটপটি/পুর তৈরির নিয়ম:—
চটপটি রেসিপি :
*ডাবলি/মটর আধা কেজি,
*বেকিং পাউডার ১ চা চামচ,
*লবণ পরিমাণমতো,
*পানি পরিমাণমতো,
*আলু ৪টা (সেদ্ধ),
*পেঁয়াজ কুচি ৪ টেবিল চামচ,
*ধনেপাতা কুচি ২ টেবিল চামচ,
*কাঁচামরিচ কুচি ২টা,
*চটপটির/চাট মশলা ২ টেবিল চামচ,
*লেবুর খোসা ১ চা চামচ,
*ডিম সেদ্ধ ২টা,
*বিট লবণ সিকি চা চামচ,
*ভাজা মরিচ গুঁড়া আধা চা চামচ,
*লবণ পরিমাণমতো,
*ভাজা জিরা গুঁড়া আধা চা চামচ,
*চিনি পরিমান মতো,
*পানি পরিমাণমতো।

চটপটি/পুর যেভাবে তৈরি করা লাগবে ::-

ডাবলি/মটর সারা রাত ভিজিয়ে রেখে ধুয়ে বেকিং পাউডার, লবণ ও পরিমাণমতো পানি দিয়ে সেদ্ধ করে নিন। পানি পুরোপুরি শুকাবেন না, বেশ একটু ভেজা ভেজা থাকবে৷ এবার সেদ্ধ আলু ও ২টি সিদ্ধ ডিম গ্রেট করে নিন।
এবার একটা বাটিতে সেদ্ধ ডাবলি/মটর দিয়ে এর সঙ্গে আলু, ডিম সিদ্ধ, পেঁয়াজ কুচি, ধনেপাতা কুচি, শশা কুচি, কাঁচামরিচ কুচি, লেবুর খোসা, চটপটির/চাট মশলা দিয়ে একসঙ্গে চামচ দিয়ে মেখে নিন।
এবার মশলা মেশানো তেঁতুলের পানি দিয়ে নেড়ে উপরে কয়েকটা ফুচকা ভেঙে দিন। হয়ে গেল পুর তৈরি৷

চটপটির/চাট মসলা দোকানে পাওয়া যায়৷ তবে এ মসলা বাসায় বানানো যায়৷
চটপটির মসলার তৈরির নিয়ম:
পরিমান্ মতো শুকনো মরিচ, আস্ত জিরা, আস্ত ধনিয়া, মৌরি, কালো গোলমরিচ, পাচঁফোরন, লবঙ্গ, কালেজিরা, বিট লবন।
লবন ছাড়া বাকি উপকরন টেলে ব্লেন্দ করে নিন অথবা পাটায় পিষে নিন। পরে বিট লবন ভালো করে মিশিয়ে নিন।

**অবশেষে ফুচকা পরিবেশন– ভাজা ফুচকার ভিতর পুর ভরে ফুচকা তৈরী করুন এবং আলাদা ভাবে টক দিয়ে পরিবেশন করুন। কুচি করা ধনে পাতা, কুচি করা ডিম ঝুরি ফুচকার উপর ছড়িয়ে দিন। মজাদার ফুচকা তৈরি। আঙ্গুলের সাহায্যে ফুচকার মাঝে ছোট গর্ত করে পুর ভরুন।এভাবে বেশ কয়েকটি ফুচকা তৈরি করে বাটিতে টক ভরে সাজিয়ে দিন। তারপর আর কি, একটা ফুচকা আর অনেকখানি টকের যুগল বন্দী… এমন স্বাদ তৈরি হবে যে কখনও আর বাইরের ফুচকা চেখেই দেখবেন না!!

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here